বিষয়বস্তুর দিকে


সেরা ব্লগ

‘এ টিউনিশিয়ান গার্ল’


‘এ টিউনিশিয়ান গার্ল’, নাম শুনেই বোঝা যাচ্ছে আফ্রিকার দেশ টিউনিশিয়ার ব্লগ এটি৷ ২০১০ সালের শুরুতে সারা বিশ্বের নজর ছিল এই দেশটির প্রতি৷ কারণ ২৩ বছর ধরে ক্ষমতায় থাকা প্রেসিডেন্ট বেন আলির বিরুদ্ধে আন্দোলন করছিল দেশটির আপামর জনসাধারণ৷ আর তা ঠেকাতে সরকার নিয়েছিল দলন নির্যাতনের পথ৷ সে সময় এসব নির্যাতনের বিস্তারিত ছবিসহ নিজের ব্লগে তুলে ধরেছিলেন লিনা৷ সেজন্য তাঁকে যেতে হয়েছিল আন্দোলনের মাঠে৷ নিতে হয়েছিল ঝুঁকি৷ কেননা টিউনিশিয়ায় সরকারের বিরুদ্ধে লেখাটাই ছিল একটা ঝুঁকিপূর্ণ কাজ৷ কিন্তু এসব কিছুই দমিয়ে রাখতে পারেনি লিনাকে৷ অদম্য সাহস নিয়ে তিনি লিখে গেছেন একের পর এক ব্লগ৷

‘ভাহিদ নিকগু’


ভাহিদ নিকগু একজন ‘কার্টুনিস্ট’৷ ইরানের সমাজব্যবস্থা এবং রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র এবং কৌতুক প্রকাশ করার জন্য তাঁর এই ব্লগটি ইরানে অত্যন্ত জনপ্রিয়৷ তাই প্রতিবার যখনই নিকগু ব্যঙ্গাত্মক ছবি ব্লগটিতে ‘পোস্ট’ করেন, তখনই হাজারো মানুষ সেটা দেখার জন্য হুমড়ে পড়ে৷ ভাগ্য ভালো যে বর্তমানে খুব শক্তিশালী একটা ‘সার্ভার’ ব্যবহার করছেন তিনি!

সামাজিক সচেতনতায় প্রযুক্তি

‘রসপেল ইন্ফো’


রুশ সমাজে যে সব সরকারি কর্মচারি নিজেদের স্বার্থ সিদ্ধির জন্য সরকারি ‘টেন্ডার’ নিয়ে কেনা-বেচা করে, তাদের শাস্তি দেওয়াই এই ‘কম্যিউনিটি ব্লগ’-টির বিশেষত্ব৷ যে কেউ এই ব্লগের সদস্য হতে পারে৷ সদস্যদের দেওয়া আর্থিক অনুদান দিয়ে ব্লগটির জন্য তিনজন আইনজীবীও নিয়োগ করা আছে৷ তাঁরাই নিয়মিত সরকারি কর্মচারীদের কর্মকাণ্ড খুঁটিয়ে দেখেন৷ আর কারও ক্ষেত্রে যদি করের হিসেবে গোলমাল হয়, তাহলে সেটা ‘পোস্ট’-ও করে তারা৷

সেরা সামাজিক আন্দোলন

‘‘উই আর অল খালেদ সাইদ’’


২০১০ সালের জুন মাসের ঘটনা৷ মিশরের আলেকজান্দ্রিয়া শহরের সিদি গাবার এলাকার এক যুবককে বেধড়ক মারধর করল দুই পুলিশ৷ কখনো দেয়ালের সঙ্গে তরুণটির মাথা ঠুকে দেওয়া, কখনো সিঁড়ির উপরে নির্যাতন৷ পাশবিক নির্যাতনের পর তাঁকে ফেলে যাওয়া হয় একটি হাসপাতালের সামনে৷ যুবকটি হাসপাতালের সামনেই মারা যান৷ তাঁকে চিকিৎসার সুযোগ পায়নি ডাক্তারা৷ তখন তাঁর বয়সই বা কত? মাত্র ২৮৷ সেই বয়সেই ঝরে গেল একটি যুবকের প্রাণ৷ যুবকটির নাম খালিদ মোহাম্মদ সাইদ৷ পুলিশ জনসমক্ষে তাঁর উপর নির্যাতন চালিয়েছিল৷ অনেক মানুষ সেই বর্বরতায় কেঁপে ওঠে সেদিন৷ খালেদ সাইদকে নির্যাতনের তথ্য আর ছবি মানুষের মধ্য ছড়িয়ে গিয়েছিল ফেসবুকের বদৌলতে৷ এই সামাজিক নেটওয়ার্কিং সাইটে একটি পাতা আছে, নাম ‘‘উই আর অল খালেদ সাইদ''৷ এই পাতার অনুসারীর সংখ্যা বেশ কয়েক লাখ৷ মিশর সরকারের পতনে বিশেষ ভূমিকা রাখে এই পাতা৷

অমি পিয়াল’এর ব্লগ


বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করেছে ৪০ বছর আগে৷ বহু মানুষের রক্তের বিনিময়ে এই স্বাধীনতা, এই অর্জন বিশ্বের বুকে বিপ্লবের এক জলন্ত উদাহরণ৷ তবে, বাংলাদেশ স্বাধীন হলেও একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের বিচার সম্পন্ন না হওয়ায় মানুষের মধ্যে হতাশা রয়ে গেছে৷ একাত্তরে যারা নিরীহ বাংলাদেশিদের হত্যায় সহায়তা করেছিল, মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানিদের সঙ্গে ছিল, সেই যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের কাজ এখনো শেষ হয়নি৷ বাংলা ব্লগ আঙিনায় যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে যে মানুষটি নিরলস সংগ্রাম করে চলেছেন, তিনি অমি রহমান পিয়াল৷ বাংলা ব্লগ আঙিনায় জনপ্রিয় ব্লগসমুহের তালিকায় অমি রহমান পিয়াল’এর ব্লগ অন্যতম৷

রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্স পুরস্কার

‘জুডিথ টোরেয়া’-র ব্লগ


তরুণ ব্লগার জুডিথ টোরেয়া মাদক বিরোধী এই ব্লগের কর্ণধার৷ মেক্সিকোর মাদক চোরাচালানকারীদের বিরুদ্ধেই এই ‘ইন্টারনেট প্ল্যাটফর্ম’-টি গঠন করেছেন তিনি৷ তারা কিভাবে, কোন পথে মাদক পাচার করে তারই ধারাবাহিক একটা বর্ণনা পাওয়া যাবে তাঁর ব্লগে৷

‘নোভায়া গাজেটা ব্লগ’


নোভায়া গাজেটা আসলে রাশিয়ার অন্যতম একটি সংবাদপত্র৷ সেখানে সাংবাদিকদের একটি দলই এই ব্লগটি চালায়৷ এই পত্রিকা অফিসেই কাজ করতেন প্রতিশ্রুতিশীল রুশ সাংবাদিক আনা পলিটকভস্কায়া৷ তিনি ২০০৬ সালের অক্টোবরে নিহত হন৷ নোভায়া গাজেটার মাধ্যমে রাশিয়ার বহু ব্লগার প্রকাশ্যে দিবালোকে পলিটকভস্কায়া এবং আর একজন সাংবাদিক বাবুরোভার নির্মম হত্যাকাণ্ডের প্রতিক্রিয়া জানান৷

বিশেষ টপিক অ্যাওয়ার্ড হিউম্যান রাইটস

মাইগ্র্যান্ট-রাইটস ডটঅর্গ


মধ্যপ্রাচ্যে কাজ করেন প্রচুর বিদেশি শ্রমিক৷ অভিযোগ রয়েছে, মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে অবস্থানরত শ্রমিকদের উপর নির্যাতন করা হয়৷ এই নিয়ে সোচ্চার দেশি-বিদেশি ব্লগাররাও৷ মাইগ্র্যান্ট-রাইটস ডটঅর্গ নামের ওয়েবসাইটটি মূলত মধ্যপ্রাচ্যে অবস্থানরত শ্রমিকদের দুর্দশার বিভিন্ন চিত্র তুলে ধরছে ইন্টারনেটে৷ ওয়েবের শক্তিকে কাজে লাগিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের শ্রমিকদের সম্পর্কে বিশ্ববাসীকে সচেতন করাই সাইটটির মূল প্রয়াস৷ বিশেষ করে, মধ্যপ্রাচ্যে অবস্থানরত শ্রমিকদের মানবাধিকার নিশ্চিত করতে বদ্ধপরিকর মাইগ্র্যান্ট-রাইটস ডটঅর্গ৷ মাইগ্র্যান্ট রাইটস ওয়েবসাইটটি পরিচালনা করছে মিডইস্ট ইয়ুথ নামে একটি গোষ্ঠী৷

আদিবাসী বাংলা ব্লগ


ডাব্লিউফোরস্টাডি বা উইন্ডো ফর স্টাডি একটি কমিউনিটি বাংলা ব্লগ৷ এই ব্লগের পেছনের কারিগররা সবাই বয়সে তরুণ৷ মূলত আদিবাসীদের নানা অধিকার বা দাবি ইন্টারনেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে দিতে কাজ করছে এই সাইট৷ তাছাড়া আদিবাসীদের বিষয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে কোনো ভুল তথ্য থাকলে তাও ধরিয়ে দেয় এই ব্লগ সাইট৷ বাংলাদেশে সাংবিধানিক স্বীকৃতিসহ নানা ইস্যুতে আদিবাসীদের আন্দোলন দীর্ঘদিনের৷ এই আন্দোলনে এক নতুন মাত্রা যোগ করেছে আদিবাসী বাংলা ব্লগ৷ তাছাড়া ইন্টারনেটে আদিবাসীদের এক সমৃদ্ধ তথ্যভাণ্ডারে পরিণত হচ্ছে এই সাইটটি৷

সেরা ভিডিও চ্যানেল

‘স্ট্যান্ডস উইথ ফিস্ট’


ইউটিউবভিত্তিক এই ভিডিও চ্যানেলটি ইরানের সবুজ বিপ্লবের অসংখ্য ভিডিও প্রকাশ করেছে৷ চ্যানেলটি সবুজ বিপ্লবের কিছু প্রতীকী ভিডিও প্রকাশ করে, যেগুলো ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে৷

‘ইসলা প্রেসিডেনসিয়াল’


প্রথমপাতার ছবিটি দেখুন৷ দেখুন কেমন ল্যাটিন অ্যামেরিকার সব রাষ্ট্রপ্রধানরাই কেমন একটি জনবসতিশূন্য মরুভূমিতে গিয়ে হাজির হয়েছেন! আপনার কি মনে হয়? উগো চাভেজ কি এঁদের সবার উপর কর্তৃত্ব করতে চাইবেন? ব্লগের কার্টুনগুলোর দিকে ঠিকমতো তাকিয়ে দেখুন, তারা কিন্তু নিজে থেকেই নানা কথা বলছে৷

সেরা ব্লগ আরবি

‘ভায়োলেট রেভোলিউশন’


ভায়োলেট রেভোলিউশন বা ‘বেগুনি বিপ্লব’ নামের এই ব্লগটি মিশরের বিখ্যাত ব্লগার ইমাম হাশমির৷ তিনি এই ব্লগটিতে তাঁর দৈনন্দিন জীবনের, জীবনযাত্রার এবং মিশরের রাজনৈতিক পটপরিবর্তনের বর্ণনা দিয়ে থাকেন৷ অন্যদিকে ইমাম মিশরের অন্যতম নারীবাদী ব্লগার ও নারী অধিকারকর্মীও বটে৷

সেরা ব্লগ বাংলা

আরিফ জেবতিকের ব্লগ


বাংলাদেশের রাজনীতি, সামাজ ব্যবস্থা, মানবাধিকার পরিস্থিতিসহ বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে নিয়মিত লিখছেন আরিফ জেবতিক৷ চলতি বিভিন্ন বিষয়ে ব্লগে দ্রুত প্রতিক্রিয়া জানাতে বিশেষ পারদর্শী তিনি৷ ফেসবুকে প্রভু’র সঙ্গে তাঁর প্রতীকী আলাপচারিতাও বেশ জনপ্রিয়৷

সেরা ব্লগ চীনা

‘ট্রান্সলেটর’


নাম দেখেই যেমনটা মনে হচ্ছে, চীনের ট্রান্সলেটর নামের এই ব্লগটির কাজটাও হচ্ছে ঠিক তাই৷ চীনের একদল স্বেচ্ছাসেবী ব্লগার চীনসহ বিশ্বের নানা প্রান্তের সংবাদ অনুবাদ করে থাকেন৷ বিশ্বের নানা ভাষার সংবাদ চীনের মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়াই এদের প্রধান উদ্দেশ্য৷

সেরা ব্লগ ইংরেজি

‘রেটিংস অব আ স্যান্ডমাংকি’


স্যান্ডমাংকি’র নাম আজ অনেকেরই পরিচিত৷ কিন্তু বিশ্ববাসীকে আরো বেশি তথ্য প্রদানকারী এই ব্লগটির পিছনে আসলে যে মানুষটি লুকিয়ে আছেন - তাঁকে অনেকেই চেনেন না৷ তাঁর নাম মাহমদ সালেম৷ মিশরে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা এবং উন্নয়নের জন্য বহু বছর ধরে কাজ করছেন তিনি৷ তাঁর অকপট বক্তব্য ও সাহসিকতার জন্য তাঁকে পুলিশের হাতে মারধোর, এমনকি হাজতবাসও করতে হয়েছে৷ তারপরও তিনি মিশরের মানুষকে তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার জন্য উদ্বুদ্ধ করে আসছেন৷

সেরা ব্লগ ফরাসি

‘সিরিয়াস গেইম’


কম্পিউটার গেইম যে সমাজ গঠন, নগরায়ন এবং তার উন্নয়নে সহায়ক হতে পারে - এটা হয়তো আগে ভাবাই যায় নি৷ কিন্তু, সিরিয়াস গেইম নামের এই ব্লগটি সেটাও করে দেখিয়ে দিয়েছে৷ আজ সুশীল সমাজ গঠনে এর ভূমিকাকে আর অস্বীকার করা যায় না৷

সেরা ব্লগ জার্মান

‘টেক্সটিলফেরগেহেন’


জার্মান ভাষার এটি একটি বেশ মজার ব্লগ৷ স্টেফানি লাম নামের এক তরুণী এই ব্লগটা চালাচ্ছেন৷ রাজধানী বার্লিনে ফুটবল ক্লাব ‘১এফসি ইউনিয়ন’-এর খুব বড় একজন ভক্ত স্টেফানি৷ তাই এই ক্লাবটি নিয়েই একটা ব্লগ তৈরি করেছেন তিনি৷ অবশ্য ব্লগটিতে ক্লাব কর্মকাণ্ড ছাড়াও, নিজের কথা, নিজের জীবনের কথাও লেখেন স্টেফানি লাম৷

সেরা ব্লগ ইন্দোনেশীয়

‘বেনাব্লগ ডট কম’


ইন্দোনেশিয়ার তরুণ-তরুণীদের একটি সম্মিলিত প্রচেষ্টার ফল এই ব্লগটি৷ হরেক রকমের বিষয় নিয়ে, নানাভাবে লেখা হয় এই ব্লগে৷ কবিতা, উপন্যাস, অর্থনীতি, রাজনীতি থেকে শুরু করে হালের ফ্যাশন, এমনকি ফুটবলের খবরও পাওয়া যায় বেনাব্লগে৷

সেরা ব্লগ ফার্সি

‘শুগার’


শুগার, মানে চিনি৷ খেতে মিষ্টি, আর যাতে দেওয়া হয় সেটাও মিষ্টি হয়ে ওঠে৷ আর ঠিক সেটাই করতে চায় শুগার নামের এই ব্লগটি৷ কঠিন, কঠিন ভিডিও নয়৷ এমনকি বিশাল বিশাল ছবিও নয়৷ বরং মিষ্টি মিষ্টি লেখা দিয়েই ভর্তি এই চিনি-ব্লগ৷

সেরা ব্লগ পর্তুগিজ

‘ভা ডে বাইক’


একটা সাইকেল বগলদাবা করো আর রাস্তায় নেমে যাও৷ মানে সাইকেল হাতে বেরিয়ে পড়াটাই এই ব্লগের মূল বিষয়বস্তু৷ পর্তুগালের সাও পাওলো’র মতো একটা গাড়ি-সর্বস্ব শহরে (শহরটিতে অন্ততপক্ষে ৭ মিলিয়ন গাড়ি চলে) সাইকেলের জনপ্রিয়তা আবারো বাড়াতে চায় ‘ভা ডে বাইক’৷ এতে করে শহরটিকে আরো পরিবেশ-বান্ধবও করে তুলতে চায় তারা৷

সেরা ব্লগ রাশিয়ান

‘নাভালনি’র ব্লগ’


অ্যালেক্সি নাভালনি’কে একবার ‘টাইম ম্যাগাজিন’ রাশিয়ার ‘এরিক ব্রকোভিচ’ বলে উদ্ধৃত করেছিল৷ পেশায় আইনজীবী এবং ‘নেট অ্যাক্টিভিস্ট’ অ্যালেক্সি নাভালনি আদতে রাশিয়ার একজন দুর্নীতিবিরোধী ব্লগার৷ গত বছর তিনি প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুটিনের সময় শেষ হয়ে এসেছে বলে মন্তব্য করেন৷ এর জন্য তাঁকে ১৫ দিনের কারাবাসও করতে হয়৷ এরপরেও রাশিয়ার প্রতিবাদ কর্মসূচি সফর করতে ইন্টারনেটের মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে নাভানি’র এই ব্লগ৷

সেরা ব্লগ স্প্যানিশ

‘আলব্যার্তো মন্ত’


আলব্যার্তো’র এই ব্লগটি মূলত হাস্য-কৌতুকে ভরা৷ তাঁর নিজের কথায়, এ ব্লগ তৈরির ক্ষেত্রে গ্যারি লার্সন এবং কুইনোর যথেষ্ট প্রভাব আছে৷ সব রকম পাঠকের জন্যই এ ব্লগে হাসির খোরাক রয়েছে৷ আসলে এ ব্লগের মাধ্যমে আলব্যার্তো একটা জিনিসই করতে চেয়েছেন - নিজের ভিতরের পাগলামিটা সবার সামনে হাজির করতে৷ আর সেটা করেছনও তিনি৷