বিষয়বস্তুর দিকে


ডয়চে ভেলের ‘দ্য বব্স’ প্রতিযোগিতার ভোটাভুটি শুরু


160330_thebobs16_milestoneposting_vote_now_600x240px

ডয়চে ভেলের ‘দ্য বব্স – বেস্ট অফ অনলাইন অ্যাক্টিভিজম’ অ্যাওয়ার্ডের চূড়ান্ত প্রতিযোগীদের ভোটাভুটি শুরু হয়েছে৷ বিশ্বের ১৩টি ভাষার প্রতিযোগীদের সঙ্গে বাংলা ভাষার চার প্রতিদ্বন্দ্বী রয়েছে, যারা বাকস্বাধীনতা ও সমাজের উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য আবদান রাখছেন৷

চলতি বছর ‘দ্য বব্স’ প্রতিযোগিতার জন্য দু’হাজার তিনশোর বেশি মনোনয়ন জমা পড়েছে৷ এ সব মনোনয়ন যাচাই-বাছাইয়ের পর দ্য বব্স-এর আন্তর্জাতিক জুরিমন্ডলী ১৪টি ভাষার চূড়ান্ত প্রতিদ্বন্দ্বীদের বাছাই করেন৷ বাংলা ভাষার যেসব প্রতিদ্বন্দ্বী মিশ্র ভাষা বিভাগগুলোতে রয়েছে, তারা হচ্ছে সামাজিক পরিবর্তন বিভাগে সুন্দরবন বাঁচাও আন্দোলন, প্রগতির জন্য প্রযুক্তি বিভাগে মায়া অ্যাপ, নাগরিক সাংবাদিকতা বিভাগে রেজর’স এজ ভিডিও তথ্যচিত্র এবং শিল্প ও সংস্কৃতি বিভাগে জিএমবি আকাশের ইন্সটাগ্রাম পাতা৷

এছাড়া বাংলা ভাষা বিভাগে রয়েছে পাঁচটি ব্লগ৷ এগুলো হচ্ছে ইস্টিশন ব্লগ, জার্মান প্রবাসে, ইতুর ব্লগ, অগ্নি সারথির ব্লগ এবং প্রবীর বিধানের ব্লগ৷ আগামী ২ মে পর্যন্ত তাদের অনলাইনে ভোট দেয়া যাবে৷ ভোট দিতে ভিজিট করুন: http://thebobs.com/bengali/

অনলাইন ব্যবহারকারীদের ভোটে ‘ইউজারস প্রাইজ’ বিজয়ীদের পাশাপাশি দ্য বব্স-এর জুরিমন্ডলী জার্মানির রাজধানী বার্লিনে এক বৈঠকের মাধ্যমে প্রতিযোগিতার ‘জুরি অ্যাওয়ার্ড’ বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হবে, যাদের আগামী জুন মাসে জার্মানির বন শহরে পুরস্কার গ্রহণের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হবে৷ ইতোমধ্যে পাঁচটি বাংলাদেশি ব্লগ এবং প্রকল্প ‘জুরি অ্যাওয়ার্ড’ জয় করেছে, যা এক রেকর্ড৷

উল্লেখ্য, চলতি বছর দ্য বব্স প্রতিযোগিতার মিডিয়া পার্টনার হচ্ছে আলসুমারিয়া, সামহয়্যার ইন ব্লগ, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম, বাংলাট্রিবিউন, চায়না ডিজিটাল টাইমস, আইএফইএক্স, গ্লোবাল ভয়েসেস, ওয়াজা, সত্যাগ্রহ, ওয়েবদুনিয়া, গোয়া, রোমাডস্কে টিভি, নোভোয়ে ভ্রেমিয়া, মাদিয়াতাভা৷ প্রতিযোগিতার আনুষ্ঠানিক হ্যাশট্যাগ হচ্ছে #thebobs16

আপনার পরামর্শের জন্য ধন্যবাদ


thebobs16_milestoneposting_voting_starts_600x240px

চলতি বছরের ‘দ্য বব্স – বেস্ট অফ অনলাইন অ্যাক্টিভিজম’ প্রতিযোগিতার জন্য প্রায় আড়াই হাজার মনোনয়ন জমা পড়েছে৷ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অসাধারণ সব মানুষ আর প্রকল্পকে সম্পর্কে জানানোয় আপনাকে ধন্যবাদ৷

জমা পড়া মনোনয়নগুলো এখন যাচ্ছে বিভিন্ন ভাষার বিচারকদের কাছে৷ এসব মনোনয়ন যাচাই-বাছাই করে এবং নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী চূড়ান্ত তালিকা তৈরির দায়িত্ব এখন তাদের৷

আমরা আগামী ৩১ মার্চ ১৪টি ভাষায় চলতি বছরের চূড়ান্ত প্রতিযোগিদের নাম প্রকাশ করবো৷ এরপর অনলাইনে তাদের ‘ইউজার অ্যাওয়ার্ডের’ জন্য ভোট দেয়া যাবে ২ মে পর্যন্ত৷ বিশ্বের যে কোনো প্রান্ত থেকেই ভোট দেয়া যাবে, তবে একজন প্রার্থীকে একজন ভোটার প্রতি ২৪ ঘণ্টায় একবারের বেশি ভোট দিতে পারবেন না৷

আর ১৪টি ভাষার প্রতিনিধিদের নিয়ে তৈরি আন্তর্জাতিক বিচারকমণ্ডলী ‘জুরি অ্যাওয়ার্ড’ বিজয়ীদের নির্ধারণে বৈঠকে বসবেন জার্মানির রাজধানী বার্লিনে৷ এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে সেই বৈঠকে বিজয়ীদের জার্মানির বন শহরে অনুষ্ঠেয় গ্লোবাল মিডিয়া ফোরামে পুরস্কার গ্রহণের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হবে৷

সব বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হবে আগামী ২ মে৷ সুতরাং এখন অপেক্ষার পালা৷

মনোনয়ন জমা দিন!


thebobs16_milestoneposting_submit_now_600x240px_bengalischডয়চে ভেলের দ্য বব্স প্রতিযোগিতার ১২তম আসরের মনোনয়ন জমা নেয়া হবে আগামী ৩ মার্চ পর্যন্ত৷ তা ঠিক কী মনোনয়ন দেয়া যাবে?

অনলাইনে মনোনয়ন জমা দেয়ার ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট কোনো ‘ফরম্যাট’ নেই৷ এটা হতে পারে কোনো ব্লগ, পডকাস্ট কিংবা ফেসবুক, টুইটার বা অন্য কোনো সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে থাকা প্রোফাইল বা পাতা৷ তবে জমা দেয়া লিংকটিতে সবার প্রবেশাধিকার থাকতে হবে৷ আর সেখানে প্রদর্শিত কন্টেন্ট ডয়চে ভেলের নীতিমালার সঙ্গে মানানসই হতে হবে৷

কোন কোন ভাষায় মনোনয়ন জমা দেয়া যাবে?

ডয়চে ভেলের চলতি প্রতিযোগিতার ভাষাগুলো হচ্ছে: আরবি, বাংলা, চীনা, ইংরেজি, ফরাসি, জার্মান, হিন্দি, ইন্দোনেশীয়, ফার্সি, পর্তুগিজ, রাশিয়ান, স্প্যানিশ, তুর্কি এবং ইউক্রেনীয়৷ মনোনয়নের জন্য জমা দেওয়া কন্টেন্ট এখানে উল্লেখিত একটি বা একাধিক ভাষায় হতে পারবে৷ তবে অন্য কোনো ভাষার মনোনয়ন বিবেচনা করা হবে না৷

কে মনোনয়ন দিতে পারবেন?

যে কোনো ইন্টারনেট ব্যবহারকারী তাঁর পছন্দের প্রার্থীকে মনোনয়ন দিতে পারেন৷ খেয়াল রাখবেন, একই লিংক বারবার জমা দিলে সেটির পুরস্কার জয়ের সম্ভাবনা বাড়বে না৷ তবে একটি লিংক একাধিক ক্যাটাগরিতে মনোনয়ন দেয়া যাবে৷

জমা দেয়া লিংকগুলো দিয়ে কী করা হবে?

ডয়চে ভেলের এই ওয়েবসাইটে জমা পড়া লিংকগুলো ভাষা সংশ্লিষ্ট বিচারকদের কাছে পাঠানো হবে৷ তাঁরা এ সব লিংক যাচাইবাছাই করে এবং প্রয়োজনে নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী আরো লিংকযোগ করে প্রতিযোগিতার মনোনয়ন চূড়ান্ত করবেন৷ আর চূড়ান্ত তালিকা এই ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে আগামী ৩১ মার্চ৷ সব ক্যাটেগরিতে অনলাইন ভোটাভুটিও শুরু হবে তখন থেকে৷

তবে সবার আগে সিদ্ধান্ত নিতে হবে আপনার৷ আপনার ইন্টারনেট হিরো কে? কার লেখা আপনার ভালো লাগে? ইন্টারনেটে বাকস্বাধীনতা নিশ্চেত, সুশীল সমাজকে সক্রিয় রাখতে কাজ করেছেন কে? আপনার পছন্দের ব্যক্তি বা প্রকল্পকে মনোনয়ন করুন এক্ষুনি!

চার ফেব্রুয়ারি শুরু হচ্ছে দ্য বব্স ২০১৬


thebobs16_milestoneposting_600x240px_Englischআর বেশি অপেক্ষা করতে হবে না৷ ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে তিন মার্চ পর্যন্ত আমরা দ্য বব্স ২০১৬-এর জন্য আপনার পরামর্শ গ্রহণ করবো৷

যে কোনো ইন্টারনেট ব্যবহারকারীই তাঁর পছন্দের প্রার্থীকে প্রতিযোগিতার জন্য মনোনয়ন দিতে পারবেন৷ আর এ জন্য এক পয়সাও খরচের ব্যাপার নেই৷ তবে প্রতিযোগিতার জমা দেয়া লিংক অবশ্যই প্রতিযোগিতার ১৪টি ভাষার একটি বা একাধিক ভাষার হতে হবে৷ প্রতিযোগিতায় থাকা ভাষাগুলো হচ্ছে: আরবি, বাংলা, চীনা, ইংরেজি, ফরাসি, জার্মান, হিন্দি, ইন্দোনেশিয়া, ফার্সি, পর্তুগিজ, রাশিয়ান, স্প্যানিশ, তুর্কি এবং ইউক্রেনীয়৷

#thebobs16 -এ চারটি মিশ্র ক্যাটাগরি রয়েছে৷ এই ক্যাটাগরিগুলোতে মূলত বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে জমা পড়া প্রকল্পগুলোর মধ্যে প্রতিযোগিতা হবে৷ আর একটি স্বাধীন, আন্তর্জাতিক জুরিমন্ডলী ‘জুরি অ্যাওয়ার্ড’-এর জন্য চূড়ান্ত বিজয়ীদের নির্ধারণ করবেন৷ পাশাপাশি থাকছে ব্যবহারকারীদের ভোটে নির্বাচিত ‘ইউজার অ্যাওয়ার্ড’৷ এ বছরের মিশ্র ক্যাটাগরিগুলো হচ্ছে:

সোশ্যাল চেইঞ্জ
টেক ফর গুড
আর্টস অ্যান্ড কালচার
সিটিজেন জার্নালিজম

প্রতিটি ভাষা বিভাগেও একজনকে বা একটি প্রকল্পকে ‘ইউজার অ্যাওয়ার্ড’ দেয়া হবে৷

এখানেই শেষ নয়৷ ডয়চে ভেলে এ বছরও দ্য বব্সের অংশ হিসেবে একটি বাকস্বাধীনতা অ্যাওয়ার্ড প্রদান করবে৷ ডিডাব্লিউ-র পরিচালকমণ্ডলী এক্ষেত্রে চূড়ান্ত বিজয়ী নির্ধারণ করবেন৷

দ্য বব্স ২০১৬-র বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হবে আগামী মে মাসের শুরুতে, বার্লিনে জুরিমণ্ডলীর এক বৈঠকের পর৷ আর জুরি এবং বাকস্বাধীনতা অ্যাওয়ার্ড জয়ীদের পুরস্কার প্রদান করা হবে আগামী ১৪ জুন জার্মানির বন শহরে অনুষ্ঠিতব্য ডয়চে ভেলে গ্লোবাল মিডিয়া ফোরামে

টুইটারে আমাদের পাবেন @dw_thebobs ঠিকানায় আর ফেসবুকে এখানে